মে ২৭, ২০২৪ ১৯:০২ Asia/Dhaka
  • মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি ও জেনারেল আসিম মুনিরের বৈঠক (ফাইল ফটো)
    মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি ও জেনারেল আসিম মুনিরের বৈঠক (ফাইল ফটো)

ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সামরিক বাহিনীর চিফ অফ স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি বলেছেন, প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে বিশেষ করে পাকিস্তানের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে তেহরান। আজ (সোমবার) পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনিরের সঙ্গে টেলিফোন আলাপে একথা বলেন ইরানের চিফ অফ স্টাফ।

ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়েদ ইব্রাহিম রায়িসির শাহাদাতের এক সপ্তাহ পর দুই প্রতিবেশী দেশের সেনাপ্রধানের মধ্যে এই টেলিফোন সংলাপ অনুষ্ঠিত হলো।

জেনারেল বাকরি বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি ইরান ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের বিষয়ে বিশেষ জোর দিয়েছিলেন। তিনি দুই দেশের সীমান্তকে বন্ধুত্বের সীমান্তে পরিণত করেছিলেন। পাকিস্তানের সাথে সব ক্ষেত্রে সম্পর্ক উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করেছিলেন তিনি। 
একইভাবে শহীদ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ানও প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে বিশেষ করে পাকিস্তানের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নের ওপর খুবই গুরুত্ব দিয়েছিলেন এবং সেই লক্ষে তিনি কাজ করছিলেন।

জেনারেল বাকেরি সুস্পষ্ট করে বলেন, ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শাহাদাতের মধ্য দিয়ে তেহরানের পররাষ্ট্র নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসেনি। প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে বিশেষ করে পাকিস্তানের সাথে বন্ধুত্ব ও ভ্রাতিত্বপূর্ণ সম্পর্ক জোরদার করার নীতি অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, “আমরা অবশ্যই এই সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে সফল হব এবং কাউকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত করার সুযোগ দেবো না। 

ফোনালাপে পাক সেনা প্রধান ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শাহাদাতের ঘটনায় গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি শুধু ইরান নয়, পুরো মুসলিম বিশ্বের জন্য সম্মানের উৎস ছিলেন। তার সমস্ত প্রচেষ্টা মুসলিম উম্মাহর ঐকের জন্য নিবেদিত ছিল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান সম্পর্কে পাক সেনাপ্রধান বলেন, “তিনি আমার ভাইয়ের মতো ছিলেন। তিনি ইরান ও পাকিস্তান জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করার ক্ষেত্রে অত্যন্ত কার্যকর পদক্ষেপ নিয়েছিলেন।”#

পার্সটুডে/এসআইবি/এমএআর/২৭

বিশ্বসংবাদসহ গুরুত্বপূর্ণ সব লেখা পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে অ্যাকটিভ থাকুন।  

ট্যাগ